৬ মাসের সাজা থেকে

৬ মাসের সাজা থেকে বাঁচতে ৫ বছর পলাতক

চেক প্রতারণার দুটি মামলায় সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি জাহাঙ্গীর আলমকে (৫১) গ্রেপ্তার করেছে চুয়াডাঙ্গা সদর থানা পুলিশ।

সোমবার (২৫ অক্টোবর) বিকেল ৫টার দিকে তাকে আদালতে সোপর্দ করা হয়। পরে তাকে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালতের বিচারক। এর আগে সকালে ঢাকার বনানী এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে চুয়াডাঙ্গা সদর থানা পুলিশ। গ্রেপ্তার জাহাঙ্গীর আলম চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার কোর্টপাড়ার মৃত শেখ আহমদের ছেলে।

পুলিশ আরটিভি নিউজকে জানিয়েছেন, জাহাঙ্গীর খুলনার কনস্ট্রাকশন ম্যাটেরিয়ালের স্বত্ত্বাধিকারী কামালের সঙ্গে ব্যবসা করেন। ব্যবসার এক পর্যায়ে টাকা আটকে ফেলেন তিনি। এরই প্রেক্ষিতে ২০১৩ সালে তার বিরুদ্ধে জালিয়াতির মামলা করা হয়। ২০১৬ সালের ১৭ ফেব্রুয়ারি ওই মামলায় তাকে ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড ও ১০ লাখ ৭ হাজার ৪০০ টাকা অর্থদণ্ডাদেশ দেন আদালত।

এছাড়া, ২০১৫ সালে তার বিরুদ্ধে আরও একটি মামলা হয়। চলতি বছরের ২ মার্চ ওই মামলায় তাকে ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড ও ৬ লাখ ৪০ হাজার টাকা অর্থদণ্ডাদেশ দেন আদালত। তারপর থেকে তিনি পলাতক ছিলেন। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে সকালে ঢাকার বনানী এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে চুয়াডাঙ্গা সদর থানা পুলিশ।

চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ মহসীন জানিয়েছেন, বিকেলে গ্রেপ্তারকৃত জাহাঙ্গীরকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। ওই দুটি মামলা ছাড়াও তার বিরুদ্ধে চুয়াডাঙ্গা, খুলনাসহ বিভিন্ন জেলায় আরও ৭ থেকে ৮টি মামলা রয়েছে। মামলাগুলো বিচারাধীন রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *