সুপার ১২’তে টাইগাররা

পিএনজি’র উইকেট তাসের ঘর বানিয়ে সুপার ১২’তে টাইগাররা

টসে জয়ের পর আজ বাংলাদেশের ব্যাট হেসেছিল। লিটন, সাকিব, মাহমুদুল্লাহ, আফিফ, সাইফুদ্দিনদের ব্যাটে ভর করে পাপুয়ানিউগিনিকে দিয়েছিল ১৮২ রানের লক্ষ্য। সেই লক্ষ্য তাড়া করতে গিয়ে প্রথমে খেই হারিয়ে ফেলে পিএনজি। ০০ ওভারে সবকটি ইউকেট হারিয়ে তাদের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৯৭ রান। বাংলাদেশের ঘরে জয় আসে ৮৪ রানে। নিশ্চিত হয় পরবর্তী সুপার টুয়েলভ।

টসে জিতে ব্যাটিং নেওয়া বাংলাদেশ প্রথমেই ধাক্কা খায় নাঈমকে হারিয়ে। তবে সে ধাক্কা ওয়ান ডাউনে নামা সাকিবকে নিয়ে সামলে নেন লিটন দাস। ব্যক্তিগত ২৯ রানে লিটন ফিরে গেলেও আগলে রাখেন সাকিব। চালাতে থাকেন আগ্রাসী ব্যাটিং।

লিটনের বিদায়ের পর মাঠে এসে সুবিধা করতে পারেননি মিস্টার ডিপেন্ডেবল খ্যাত মুশফিকুর রহিম। ব্যক্তিগত পাঁচ রানে করে বিদায় নেন তিনি।

এর পর অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ এসে আগ্রাসী রূপ নেন। ২৮ বলে করে ৫০ রান। এর মধ্যে ছিল তিনটি চার ও তিনটি ছক্কার মার। তাকে সঙ্গ দেন অফিফ হোসেন (১৪ বলে ২১)।

শেষে এসে চমক দেখান অলরাউন্ডার মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন। ছয় বল খেলে দুটি ছয় ও একটি বাউন্ডারি হাঁকিয়ে অপরাজিত থাকেন ১৯ রানে। দলের সংগ্রহ তখন গিয়ে দাঁড়ায় ১৮১।

পিএনজি’র ইনিংসে প্রথম আঘাতটি হানেন বাংলাদেশী অলরাউন্ডার সাইফুদ্দিন। ওপেনার লিগা সাইকাকে (৫) এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলেন।

এরপর আর কোনো ব্যাটসম্যানই দাঁড়াতে পারেনি বাংলাদেশের বোলারদের সামনে। প্রথম সারির সাতজন ব্যাটসম্যানের ব্যক্তিগত স্কোর দুই অঙ্কের ঘর ছুঁতে পারেনি সাকিব নৈপুন্যে। পিএনজি’র ব্যাটম্যানদের নিয়মিত যাওয়া-আশায় তখন দলের স্কোর ২৯ রানে সাত ইউকেট।

তবে একপ্রান্ত আগে রেখে পিএনজিতে সম্মানসূচক স্কোরের দিকে এগিয়ে নিচ্ছিলেন উইকেট কিপার ব্যাটসম্যান কিপলিন ডরিগা। তিনি অপরাজিত থাকেন ব্যক্তিগত ৪৬ রানে।

পিএনজি’র ইনিংসে শেষ আঘাতটি হানেন তাসকিন আহমেদ। তখন তাদের স্কোর সব ইউকেট হারিয়ে ৯৭ রান।

সংক্ষিপ্ত স্কোর পিএনজি:

লিগা সাইকা ৫, আসাদ ভালা ৬, চার্লস আমিনি ১, সিসি বাউ ৭, সাইমন আতাই ০, হিরি হিরি ৮, নর্মান ভানুয়া ০, কিপলিং ডরিগা ৪৬×, চাদ সপার ১১, কাবুয়া মরিয়া ৩, ডেমিয়েন রাভু ৫,

সাকিব: ৪-০-৯-৪, মেহেদী: ৪-০-২০-১, সাইফুদ্দিন: ৪-০-২১-২, মোস্তাফিজ: ৪-০-৩৪-০, তাসকিন: ৪-১-১২-২

সংক্ষিপ্ত স্কোর বাংলাদেশ:

মোহাম্মদ নাঈম ০, লিটন দাস ২৯, সাকিব আল হাসান ৪৬, মুশফিকুর রহিম ৫, মাহমুদুল্লাহ ৫০, আফিফ ২১, নুরুল হাসান ০, সাইফুদ্দিন ১৯, মেহেদী হাসান ২।

কাবুয়া মরিয়া: ৪-০-২৬-২, ডেমিয়েন রাভু: ৪-০-৪০-২, আসাদ ভালা : ৩-০-২৬-২, সাইমন আতাই: ১-০-৬-১

ম্যাচ সেরা : সাকিব আল হাসান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *