শ্রীপুরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারী র্পাকে একটি বাঘিনী অসুস্থ।

শ্রীপুরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারী র্পাকে একটি বাঘিনী অসুস্থ।

শ্রীপুর (গাজীপুর) থেকে আব্দুস সালাম রানা:

গাজীপুরের শ্রীপুরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারী র্পাকে একটি বাঘিনী প্রায় দুই মাস যাবত অসুস্থ। অসুস্থতার বেশিরভাগ কারণ বয়স জনতি বলে জানিয়েছেন বন্যপ্রাণী ও প্রকৃতি সংরক্ষণ অঞ্চল ঢাকা এর বন সংরক্ষক ও প্রকল্প পরিচালক ইমরান আহমেদ।

তিনি আরো জানান, সোমবারও (১৩ মার্চ) পার্কে গিয়ে বাঘিনীটিকে দেখে এসেছেন। দেশের প্রাণি চিকিৎসকদের উচ্চ পর্যায়ের একটি দলের পরামর্শে বাঘিনীটিকে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। এর বয়স বেশি হওয়ায় অনেকগুলো শারীরিক সমস্যা দেখা দিয়েছে বলে চিকিৎসকেরা পার্ক কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেছেন।

অসুস্থতার শুরু থেকে বাঘিনী খাবার গ্রহণ কমিয়ে দেয়। পরে এক পর্যায়ে খাবার গ্রহণ বন্ধ করে দেয়।

বয়সজনিত সমস্যাগুলোর কারণে অসুস্থ থাকলেও সোমবার গিয়ে দেখা গেছে বাঘিনীটি খাবার গ্রহণ করছে।

সাফারি পার্কের বন্য প্রাণী পরিদর্শক আনিসুর রহমান জানান, ২০১৩ সালে দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে কয়েকটি বাঘ আনা হয়েছিল এ পার্কে। তাদের মধ্যে একটি স্ত্রী বাঘ দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থতায় ভুগছে।

গত ৬ ফেব্রুয়ারি থেকে বাঘটি গুরুতর অসুস্থ হয়ে যায়। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের মাধ্যমে অসুস্থ বাঘিনীর চিকিৎসা করা হচ্ছে। পরবর্তী এক সপ্তাহ বাঘটি অল্প অল্প খাবার খাওয়া শুরু করলেও ৭ মার্চ থেকে আবারও খাওয়া বন্ধ করে দেয়। বর্তমানে এটি কোনো খাবার খাচ্ছে না।

তিনি আরো বলেন, বিশেষজ্ঞ বন্য প্রাণী চিকিৎসকেরা পরীক্ষা করে দেখেছেন বাঘটি লিভারে রোগ, যক্ষ্মা এবং ট্রিপোনোসোমিয়াসিস রোগে আক্রান্ত। বর্তমানে সাফারি পার্কে বিরল প্রজাতির একটি সাদা রঙের বেঙ্গল টাইগারসহ মোট ৯টি বেঙ্গল টাইগার রয়েছে। তাদের মধ্যে ৬টি স্ত্রী ও ৩টি পুরুষ।

সাফারি পার্কের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম জানান, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্যাথলজি বিভাগে অসুস্থ বাঘিনীর রক্তের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করা হয়েছে এবং গুরুত্ব দিয়ে এর চিকিৎসা চলছে। চিকিৎসাধীন অবস্থায় বাঘিনীর স্বাস্থ্যের অবস্থা ক্রমান্বয়ে সংকটাপন্ন হচ্ছে।

সার্বক্ষণিক বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের সাথে যোগাযোগ করে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

পার্কসুত্র জানায়, এর আগে ২০২২ এর জানুয়ারীতে সাফারি র্পাকে একটি বাঘের মৃত্যু হয়ছেলি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *