রংপুর পীরগঞ্জে ৩ দিন ব্যাপী বড়দিন উদযাপন অনুষ্ঠিত।

বিভাগীয় ক্রাইম রিপোর্টারঃ জুয়েল ইসলাম
পীরগঞ্জ সহ সারাদেশে আজ ২৫ ডিসেম্বর খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব বড়দিন আর এই উৎসব উদযাপনে পীরগঞ্জে ১৫টি ইউনিয়নের মধ্যে প্রায় ৬ থেকে ৭ ইউনিয়নে খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের মানুষের মাঝে এখন উৎসবের আমেজ ।  তারা গির্জা ও বাড়িতে আলোকসজ্জা সহ গোশালা তৈরি এবং ক্রিস্টমাস ট্রি সাজিয়েছে। স্বজনদের সঙ্গে বড়দিনের আনন্দ ভাগাভাগি করতে এরই মধ্যে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ছুটে এসেছেন নিজ নিজ গ্রামে ।  তথ্যমতে দুই হাজার বছর আগে বর্তমানের ফিলিস্তিনের বেথেলহেমের এক গোশালায় মাতা মেরির গর্ভে জন্ম নিয়েছিলেন যিশু খ্রিস্ট সেই থেকে প্রতিবছর ২৫ ডিসেম্বর সারা বিশ্বের খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীরা মহাসমারোহে পালন করেন যিশু খ্রিস্টের জন্মদিন । তিনি মানুষকে দেখিয়ে ছিলেন মুক্তি ও কল্যাণের পথ।
 স্বজনদের সঙ্গে বড়দিনের আনন্দ ভাগাভাগি করতে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে এরই মধ্যে পীরগঞ্জ উপজেলা বিভিন্ন গ্রামের বাড়িতে এসেছেন পেশাজীবী মানুষ । বড়দিন ঘিরে অতিথিদের আপ্যায়ন করতে বাড়ির গৃহিণীরা বাড়িঘর সাজানো ও আলোকসজ্জা সহ আয়োজন করছেন বাড়ীর গৃহবধূরা পিঠা, পুলি, লাড্ডু, নানা ধারনের নাস্তা তৈয়ারী নিয়ে ব্যাস্ত ।  রংপুর পীরগঞ্জ উপজেলার ১ নং চৈত্রীকোল ইউনিয়নের খালিশা মিশন প্রধান ফাদার লিওদেসাই’ র সভাপতিত্বে শুরু করেন  সকাল ৮ ঘটিকার সময় ও দুপুর ২ টার পর থেকে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ।তারা বলেন  বড়দিন উপলক্ষে আমাদের প্রত্যেকের মাঝে আনন্দ বিরাজ করছে সে কারণে আমরা সাধ্যমতো প্রত্যেকে নিজ নিজ বাড়ি সাজিয়েছি এবং আলোকসজ্জা করেছি । আল্পনা আঁকা হয়েছে বাড়ির আঙিনা ও দেয়াল সহ বিভিন্ন স্থানে। প্রভু যিশু খ্রিস্ট বেথেলহামের যে গোশালায় জন্মেছিলেন, তার আদলে প্রত্যেক বাড়িতে গোশালা স্থাপন ও সেটিকে সাজিয়ে তোলা হয়েছে ।  বড়দিন ঘিরে তিনব্যাপী অনেক রকমের আয়োজন করা হয়েছে। এসব আয়োজনের মধ্যে রয়েছে নগর কীর্তন, বড়দিনের উপাসনা, কেক কাটা, পিঠা পর্ব প্রীতিভোজ, মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।
  পীরগঞ্জ থানার অফিসার ইনর্চাজ সরেস চন্দ্র ও স্হানীয় চেয়ারম্যান আরিফুজ্জামান সহ স্হানীয় সকলের কাছ থেকে সার্বিক সহযোগিতা পেয়েছি ।
পীরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি সরেস চন্দ্র বলেন খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের মানুষ যাতে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে বড়দিন উদযাপন করতে পারে সেজন্য পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে । সব চার্চ ও গির্জায় পর্যাপ্ত পোশাকি পুলিশ নিয়োজিত রয়েছে,  পাশাপাশি আগাম তথ্য পাওয়ার জন্য সাদা পোশাকে গোয়েন্দা পুলিশও কাজ করছে । সব মিলিয়ে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।
বড়দিন উপলক্ষে নতুন বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করেন ওসি সরেস চন্দ্র, ১ নং চৈত্র কোল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আরিফুজ্জামান আরিফ,সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি মোনায়েম সরকার মানু,খালিশা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাহাবুব মাষ্টার সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *