বাবা ছেলের আত্মহত্যার রহস্য জানতে মাকে রিমান্ডে চায় পুলিশ।

বাবা ছেলের আত্মহত্যার রহস্য জানতে মাকে রিমান্ডে চায় পুলিশ।

নেত্রকোণার বাসা থেকে কাইয়ুম সরদার ও তার দুই বছরের ছেলে শাকিলের লাশ উদ্ধারের মামলা হয়েছে।

এই মামলায় গ্রেপ্তার কাইয়ূম সরদারের স্ত্রী সালমা আক্তারকে রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করেছে পুলিশ।

নেত্রকোণা মডেল থানার ওসি খন্দকার শাকের আহমেদ জানান, নিহত কাইয়ূম সরদারের ছোট ভাই মোস্তফা আহমেদ নিলু বাদী হয়ে শুক্রবার সালমাসহ অজ্ঞাত পরিচয় ব্যক্তিদের আসামি করে থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

এই মামলায় সালমাকে গ্রেপ্তার করে শুক্রবার সন্ধ্যায় নেত্রকোণা আদালতে তুলে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৭ দিনের রিমান্ডের আবেদন করা হয়। পরে আদালতের নির্দেশে রাতেই সালমাকে কারাগারে পাঠানো হয়।

আদালত আগামী রোববার রিমান্ড শুনানির দিন নির্ধারণ করেছে বলে জানান এ পুলিশ কর্মকর্তা।

নেত্রকোণা শহরের নাগড়া এলাকা থেকে বৃহস্পতিবার সকাল সোয়া ৯টার দিকে ওষুধ প্রশাসন দপ্তরের অফিস সহাকারী ৩২ বছর বয়সী কাইয়ুম সরদার ও তার দুই বছরের ছেলে শাকিলের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

কাইয়ুমের স্ত্রী সালমা আক্তার (২০) পুলিশকে বলেছেন, ‘সকালে ঘুম ভেঙে’ তিনি ঘরের ভেতর স্বামীর ঝুলন্ত লাশ দেখেন, আর ছেলের লাশ পরে ছিল পাশে।

কাইয়ুমের বাড়ি কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী উপজেলার গোপালের খাঁ গ্রামে। নেত্রকোণা শহরের নাগড়া এলাকায় একটি পাঁচতলা বাড়ির চতুর্থ তলায় স্ত্রী-সন্তান নিয়ে ভাড়া থাকতেন তিনি।

পারিবারিক কলহের জেরে ছেলেকে হত্যার পর বাবা আত্মহত্যা করেছেন বলে লাশ উদ্ধারের পর প্রাথমিক ধারণার কথা জানিয়েছিল পুলিশ।

ওসি শাকের বলেন, সালমাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে বাবা-ছেলের মৃত্যুর কারণ বের হয়ে আসতে পারে। এ ঘটনাটি সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত করা হচ্ছে।

পুলিশের পাশাপাশি সিআইডির ক্রাইম সিন ইউনিট ও পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) সদস্যরা ঘটনাটি তদন্ত করছে বলে জানান তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *