পাষণ্ড পিতা নিজের কন্যা সন্তান মাদ্রাসা রেখেই পালিয়ে যায়

পাষণ্ড পিতা নিজের কন্যা সন্তান মাদ্রাসা রেখেই পালিয়ে যায়।

টেকনাফ উপজেলায় দ্বীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হ্নীলা দারুস সুন্নাহ মাদ্রাসায় নিজে বাচ্চার হাত ধরে মাদ্রসা প্রবেশ করিয়ে শ্রেনী কক্ষের সামনে রেখে চকলেট আনতে যাবে এই বাহানা দিয়ে পালিয়ে গেল মোহাম্মদ আমিন নামে পাষন্ড পিতা।

ঐতিহ্যবাহী দ্বীনি শিক্ষা প্রতিষ্টান হ্নীলা দরুস সুন্নাহ মাদ্রাসা সকাল ১০.৫৫ মিনিটে এক পাষন্ড পিতা একটি মেয়েকে নিয়ে মাদ্রাসার গেইটে প্রবেশ করতে দেখা যায় মাদ্রাসায় এই গঠন সিসিটিভি ক্যামেরায় ধারন করে বাবা নিজ হাত ধরে তার কন্যা সন্তান আনুমানিক বয়স ৪/৫ বছর কে মাদ্রাসায় প্রবেশ করে শ্রেনি কক্ষের দিকে চলে যেতে দেখা যায়। পরে থাকে শ্রেনী কক্ষের সমানে চকলেট আসনা বাবা পালিয়ে যায়। মেয়ে বাবা বাবা বলে কাঁদতে থাকলে মাদ্রাসা শিক্ষকের নজরে পড়ে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নজরে আসে অনেক মানুষের খোঁজাখুঁজির পর সন্ধান মিলে টেকনাফের শাহপরীর দ্বীপ মিস্ত্রী পাডার বাসিন্দা জনাব নুরুল ইসলামের ছেলে মোহাম্মদ আমিন তার জন্মদাতা পিতা বলে জানা যায়।

দাদার ও স্থানীয় মেম্বার জনাব আবদুস সালামের কথা বলে জানানো যায় বছর খানেক আগে শিশুটির মাতা নুর নাহারের সাথে পিতা মোহাম্মদ আমিনের বিবাহ বিচ্ছেদ হওয়ায় শিশুটি এই করুণ পরিস্থিতির শিকার হয়েছে। তার লম্পট ছেলে মোহাম্মদ আমিনের হাতে তুলে না

দিয়ে কোন হৃদয়বান ব্যক্তিকে লালন পালন করার জন্য অনুরোধ জানালেন হ্নীলা ইউনিয়নের হোয়াকিয়া পাড়া নিবাসী জনাব নুরুল কবির সওদাগরের পুত্র আলী জোহার শিশুটিকে লালন পালনের দায়িত্ব গ্রহণ করে তার বাড়ীতে নিয়ে যান৷

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *