নীলফামারী সদরের খোকশা বাড়িতে অনলাইন প্রতারক চক্রের ৪ জন গ্রেপ্তার পলাতক ১ জন

নীলফামারী সদরের খোকশা বাড়িতে অনলাইন প্রতারক চক্রের ৪ জন গ্রেপ্তার পলাতক ১ জন।

আব্দুস সালাম ষ্টাফ রিপোর্টার

নীলফামারী সদরে জনকল্যাণ স্বেচ্ছাসেবী ফাউন্ডেশনের নামে গ্রামের সাধারন মানুষের নিকট থেকে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগে প্রতারক চক্রের ৪ জনকে গ্রেপ্তার করেছে নীলফামারী সদর থানা পুলিশ। সোমবার (১৯শে ফেব্রুয়ারী) বিকালে পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে পুলিশ সুপার গোলাম সবুর (পিপিএম) বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরে প্রেস ব্রিফিং করেছেন।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, নীলফামারী সদরের কুন্দুপুকুর ইউনিয়নের মোঃ রুস্তম আলীর ছেলে মিজানুর রহমান (মান্নু) (২৪), শ্রীঃ ভবেশ রায়ের ছেলে সাগর রায় (২৬), মোঃ জিয়াউর রহমানের ছেলে মোঃ জাকির হোসেন (১৯) ও গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ এলাকার মোঃ মজিদুল সরকারের ছেলে মোঃ শাওন মিয়া (২৫)। আরও এ ঘটনায় জড়িত নীলফামারী শহরের শাহীপাড়ার আরিফ হোসেন আরিফ (৩০) পলাতক রয়েছেন।

জানাযায়, প্রতারকরা জেলা সদরের খোকশাবাড়ি ইউনিয়নের বিভিন্ন পাড়া, মহল্লার সহজ সরল মানুষকে প্রথমে জনকল্যাণ স্বেচ্ছাসেবী ফাউন্ডেশনের পক্ষে বিনামূল্যে খাদ্য সরবরাহের নামে জাতীয় পরিচয়পত্র ও ছবি সংগ্রহ করে এক কেজি আটা বিতরণ করেন। এরপর সবার জাতীয় পরিচয়পত্রের মুল কপিরও ছবি তুলে নেয়। তাদের বিকাশ ও নগদ একাউন্টের পরিচালনার সকল তথ্য প্রতারক চক্র নিয়ন্ত্রনে নিয়ে নেয়।

প্রতারনার সিকার গ্রামের সাধারন মানুষদের বুঝে উঠার আগেই তাদের বিকাশ ও নগদের টাকা প্রতারকরা সরিয়ে নিতেন। এছাড়াও এই চক্রটি তাদের ছবি ও এনআইডি ব্যবহার করে অনলাইনে জুয়া ও প্রতারণায় লিপ্ত ছিলেন।

পুলিশ সুপার গোলাম সবুর (পিপিএম) বলেন, এ প্রতারক চক্রটি বেশ কিছুদিন ধরে সক্রিয় হয়ে উঠেছে। তিনি বলেন, গোপন তথ্যের ভিত্তিত্বে রবিবার (১৮ই ফেব্রুয়ারী) সন্ধ্যায় পুলিশের অভিযানে ঘটনা স্থল থেকে চক্রটির ৪জন সদস্যকে খোঁখসাবাড়ি এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। ঘটনা স্থল থেকে চক্রটির কাছ থেকে একটি ল্যাপটপ, পাঁচটি মোবাইল ফোন, বিভিন্ন কোম্পানির কয়েকটি সীম, একটি ভিসা কার্ড ও একটি মোটরসাইকেল উদ্ধার করা হয়।

উল্লেখ্য, পুলিশ সুপার গোলাম সবুর (পিপিএম) আরও জানান, তথ্যপ্রযুক্তির যুগে নিজের ব্যক্তিগত তথ্য অন্য কাউকে হস্তান্তর থেকে বিরত থাকার আহবান করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *