নীলফামারীতে ভাষা শহীদদের শ্বরণে জেলা আমীন কল্যাণ সংস্থার র‌্যালি ও আলোচনা সভা

নীলফামারীতে ভাষা শহীদদের শ্বরণে জেলা আমীন কল্যাণ সংস্থার র‌্যালি ও আলোচনা সভা।

আব্দস সালাম ষ্টাফ রিপোর্টার:শীর্ষনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম

নীলফামারী আমীন কল্যাণ সংস্থার পক্ষ থেকে ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দেলনের শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন।

বুধবার( ২১শে ফেব্রুয়ারী) আমীন কল্যাণ সংস্থার জেলা সভাপতির নেতৃত্বে শহীদদের শ্বরণে কচুকাটা বন্দরে র‌্যালি বের করেন । র‌্যালি শেষে কচুকাটা বন্দর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শহীদ মিনারে ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দেলনের শহীদদের প্রতি ফুল দিয়ে বিনম্র শ্রদ্ধা জানানো হয়। এসময় ভাষা শহীদদের শ্বরণে শহীদ মিনার প্রাংগনে দোয়া মুনাজাত করা হয়।

নীলফামারী জেলা আমীন কল্যাণ সংস্থার কচুকাটা তিন থানার মোড় জেলা অফিসে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।
উক্ত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন নীলফামারী জেলা আমীন কল্যাণ সংস্থার সভাপতি জনাব মোঃ মোস্তাক আহম্মেদ

(মুন্না), এসময় বক্তব্য রাখেন, জেলা আমীন কল্যাণ সংস্থার সিনিয়র সহ-সভাপতি মোঃ আব্দুল মালেক। তিনি বলেন, আজকের এই দিনে ১৯৫২ সালে ভাষা আন্দোলন ছিল বাঙালীর স্বাধিকার আদায়ের সংগ্রামের অন্যতম একটি নিদর্শন। বাংলাকে রাষ্ট্র ভাষা করবার দাবীতে, ১৯৫২ সালে বাঙালীরা তৎকালীন পাকিস্তানি শাসকদের বিরুদ্ধে আন্দোলন শুরু করেছিলেন, পাকিস্থান সরকারের মদদে ছাত্রজনতার ওপর নির্বিচারে গুলি করে পাকিস্তানি পুলিশ বাহিনী। গুলিতে শহীদ হন রফিক, সালাম, বরকত ও জব্বারসহ আরও নাম না-জানা অনেকেই।

বাঙালিরা তাদের বুকের রক্ত দিয়ে বাংলাকে মাতৃভাষার মর্যাদা এনে দিয়েছে। তাই ইতিহাসে এই দিনটি ছিল ১৯৫২ সালের ২১শে ফেব্রুয়ারী । অমর সৃতি হিসেবে আজও এদিন পালন করা হয়। এ সময় আরও অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, জেলা আমীন কল্যাণ সংস্থার সেক্রেটারী মোঃ মোস্তাফিজার রহমান (বকুল), উপজেলা সভাপতি শ্রীঃ জিতেন্দ্র নাথ রায়,সেক্রেটারী মোঃ ওয়ালিউল্লাহ।

উক্ত অনুষ্ঠানে জেলা আমীন কল্যাণ সংস্থার কার্যকরী সদস্য মোঃ সোহাগ, মোঃ হযরত আলী, মোকছুদার রহমান,হায়দার আলী,মুন মিয়া,ফারুক হোসেন,আব্দুস সালাম,মিজানুর রহমান,আতাউর রহমান,অসিয়ার রহমান,জাহেদুল ইসলাম,নুরুল ইসলাম (মন্ডল),সুমন,রাশেদুল হক সহ অন্যান্য সাধারন সদস্য বৃন্দ উপস্থিত ছিলেন, ।

উল্লেখ্য, জেলা আমীন কল্যাণ সংস্থার সভাপতি ও উক্ত অনুষ্ঠানের সভাপতি মোঃ মোস্তাক আহম্মেদ ( মুন্না ), বলেন,আজকের এইদিনে ১৯৫২ সালে পাকিস্থান সরকারের মদদে ছাত্রজনতার ওপর নির্বিচারে গুলি করেন পাকিস্তানি পুলিশ বাহিনী। গুলিতে শহীদ হন রফিক, সালাম, বরকত ও জব্বারসহ আরও নাম না-জানা অনেকেই। সেই শহীদদের শ্বরণে আজকের এই আয়োজন। পরিশেষে উপস্থিত সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষনা করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *