টাইগারদের ব্যর্থতা নিয়ে চলছে কাটাছেঁড়া

আত্মবিশ্বাসে ভাসতে থাকা টাইগারদের এক ঝটকায় মাটিতে টেনে নামালো স্কটল্যান্ড। টাইগাররা দিলো ব্যাটিং ব্যর্থতার খেসারত।

হার দিয়েই শুরু হলো বাংলাদেশের বিশ্বকাপ মিশন। মাহমুদুল্লাহর দলের হার আর স্কটিশদের কামব্যাক নিয়ে সরব সবাই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

যত গর্জে তত নাকি বর্ষে না। এইতো ম্যাচের দুই দিন আগে বেশ জোরে হুংকার দিয়েছিলেন স্কটল্যান্ডের কোচ শেন বার্গার।

তার মতে বাংলাদেশ নাকি পাপুয়া নিউগিনি কিংবা ওমানের মতোই দল। রীতিমত উদ্ধতপূর্ণ আচরণ। তবে সময় যেতেই প্রমাণ করে ছাড়লেন কথাটা ভুল ছিলোনা এক বর্ণ।

৫৩ রানে ছয় উইকেট হারিয়ে ফেলা স্কটল্যান্ডকে একাই টেনে নিলেন টি-২০ ক্যারিয়ারে দুই নম্বর ম্যাচ খেলতে আসা ক্রিস গ্রিভস।

১৬০ স্ট্রাইকরেটে ২৮ বলে খেললেন ৪৫ রানের ইনিংস। গ্রিভস ম্যাজিক তখনও বাকি ছিলো খানিকটা। বল হাতে তুলে নেন সাকিব-মুশির ভাইটাল উইকেটটা। ব্যস কেল্লা ফতে।

২০১২ সাল ফিরলো আবার। আইসিসির সহযোগী সদস্য দেশটার সাথে অভিজ্ঞতায় টইটুম্বর বাংলার হার।

ওপেনিং ডে এমন একটা রেজাল্ট কারো কাছে অঘটন, কারো কাছে স্কটল্যান্ডের জয়জয়কার। হার্শা ভোগলে স্কটিশদের প্রত্যাবর্তনকে জানিয়েছেন সাধুবাদ।

ড্যানি মরিসনের কাছে ম্যাচটা দুর্দান্ত। জয়নব আব্বাস অজি এবং কিউইদের মাটিতে নামানো বাংলাদেশকে হারানোয় ক্রেডিট দিচ্ছেন স্কটল্যান্ডকে।

বিশ্বকাপে টিকে থাকতে ডু অর ডাই চ্যালেঞ্জ টাইগারদের সামনে। পারবে তো প্রত্যাবর্তনের গল্প লিখতে। নাকি অকাল প্রয়াণ ঘটবে লালিত স্বপ্নের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *