কোয়ালিটি ফ্যাসন বিডি,নামে থানায় অভিযোগ লক্ষ টাকা নিয়ে উধাও

কোয়ালিটি ফ্যাসন বিডি,নামে থানায় অভিযোগ লক্ষ টাকা নিয়ে উধাও।

রংপুর মেট্রোপলিটন কোতোয়ালি থানায় অভিযোগ এ রংপুর মহানগরীর তাতীপাড়ার বাসিন্ধা মৃত্যু আজিজুর রহমানের ছেলে মোঃ সাদ্দাম (৩৫)। ঢাকা পশ্চিম রামপুরার মদিনা টাওয়ারের ৬ষ্ট তলার কোয়ালিটি ফ্যাশন বিডিতে যোগ দেন রংপুর এরিয়া ম্যানেজার হিসেবে। সেই সাথে কোম্পানির একাউন্টে জামানতের টাকা সহ ডিপো ও ডিলার পয়েন্ট থেকে টাকা নিয়ে জমা করেন।

কোম্পানীর জিএম বিবাদী মোঃসাকিবুল হাসান, মোবাঃ- ০১৯২০০৩৮৮৩২, সিও গোলাম মোস্তফা। কোম্পানীর ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট নং- ১৭৮১১০০০৩০০৩৭ বরাবরে ইং ১৫/০২/২০২৪ তাং ৩২,৫০০/-টাকা পাঠায় বিবাদী একাউন্টে সাদ্দাম হোসেন। ০৭ দিনের মধ্যে মালামাল পাঠাইয়া দেওয়া কথা থাকলেও কোন মালামাল পাঠায় দেয় নাই। সাদ্দাম বার বার কোম্পানী জিএম বিবাদী মোঃ সাকিবুল হাসানের নিকট মালামাল চাইলে বিভিন্ন অজুহাত দেখাইয়া কালক্ষেপন করিতে থাকে। ইহা ছাড়াও সাদ্দাম হোসেন কোম্পানীতে যোগদানের পর হইতে কোন বেতন দেয় নাই। এরই একপর্যায়ে ইং ০৪/০৩/২০২৪ তাং বিকাল অনুমান ০৪.০০ ঘটিকায় আমি বিবাদী মোঃ সাকিবুল হাসান এর মোবাঃ- ০১৯২০০৩৮৮৩২ তে হোয়াটস অ্যাপে কল দিয়া আমার মাসিক বেতন ও মালামাল পাঠাইয়া দিতে বলিলে

বিবাদী সাকিবুল হাসান অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতঃ আমাকে বেতন দিতে পারবেনা এবং আমার প্রেরিত টাকার মালামালও পাঠাইয়া দিবেনা বলিয়া জানায়। সাদ্দাম হোসেন প্রতিবাদ করিলে বিবাদী তার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করিয়া হয়রানী করিবে মর্মে বিভিন্ন প্রকার ভয়ভীতি হুমকী প্রদান করিয়া ফোন কাটিয়া দেয়। বিবাদীর কোম্পানীতে আমার লোক পাঠাইয়া দিয়া জানতে পারি বিবাদীর অফিসে তালা ঝুলানো। বিবাদী সাদ্দাম হোসেনকে কোম্পানীতে নিয়োগ প্রদান করতঃ বেতন না দিয়া এবং মালামাল দেওয়ার কথা বলিয়া টাকা লইয়া মালামাল না দিয়া সাদ্দামের
সহিত প্রতারনা করিয়াছে।

নিরুপায় হয়ে রংপুর মেট্রোপলিটন কোতোয়ালি থানায় সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন সাদ্দাম হোসেন ওই কোম্পানির বিরুদ্ধে দেশের বিভিন্ন এলাকার প্রতারিত সাদ্দামরা নিজ নিজ থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

প্রায় ৬মাস আগেও লালমনিরহাটের কালীগঞ্জের প্রতারক শাওন, রংপুরের পীরগাছার ইসাহক ও টাঙ্গাইলের শরিফুল ইসলাম পাস এ্যাগ্রো ফুড এন্ড বেভারেজ কোম্পানির লিমিটেড নামক হায় হায় কোম্পানি খুলে উত্তরাঞ্চল থেকে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়ে লাপাত্তা ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *