কুড়িগ্রামে ভোরে ঘরের দরজা ভেঙ্গে কুপিয়ে জখম

কুড়িগ্রামে ভোরে ঘরের দরজা ভেঙ্গে কুপিয়ে জখম

মোবাশ্বের নেছারী কুড়িগ্রাম:

কুড়িগ্রামে জমিজমা সংক্রান্ত জেরধরে ঘরের দরজা ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করে ফরিস উদ্দিন (৩৫) নামের এক যুবককে কুপিয়ে জখম করেছে দুর্বৃত্তরা। গুরুত আহত ফরিদকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে তার স্ত্রী শরিফা বেগম বৃহস্পতিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) আটজনকে আসামি করে রাজীবপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন।

অভিযোগ সূত্রে জানাগেছে, দীর্ঘদিন ধরে জমিজমা নিয়ে বিরোধ চলছিলো। এরই জের ধরে পরিকল্পিতভাবে বৃহস্পতিবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে মনির হোসেন (২২), ফরিজল হক (৫০),মাসুদ রানা (৪০), মিলকান (৩৫), আকাশ (৩২), তারা মিয়া (৬৫), মাজেদা (৪৫) টিনসেট বসত ঘরের কাঠের দরজা ভেঙে ফরিস উদ্দিনকে হত্যার উদ্দেশ্যে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করে। চিৎকার শুনে আশেপাশের লোকজন এসে তাকে গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে রাজীবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করান।

ফরিসের স্ত্রী শরিফা জানান, ভোরে ফরিজল, মনির ও মাজেদা এসে আমাদের ডাকতে থাকে। আমরা দরজা না খোলায় ওরা দরজা ভেঙে ঘরে ঢুকে আমার স্বামীকে (ফরিস উদ্দিন) দেশীয় অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করে। এতে আমার স্বামীর মাথায় ১০টি এবং ডান চোখের কোণে ৩টি সেলাই পড়েছে। আমি বাঁচাতে গেলে মাজেদা এসে আমাকেও এলোপাতাড়ি কিল-ঘুষি মারতে থাকে। আমার চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা এসে আমাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করায়।

তার অবস্থার অবনতি হলে চিকিৎসক তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন।
রাজীবপুর থানার অফিসার্স ইনচার্জ আশিকুর রহমান বলেন, এবিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত পূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *