কুড়িগ্রামে ছাত্রির সাথে প্রেম; কলেজ প্রভাষক ও পিয়ন বরখাস্ত

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি:

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী ডিগ্রি কলেজের ছাত্রীর সঙ্গে প্রেম অতঃপর বিয়ের পরিকল্পনা করার অভিযোগে একই কলেজের এক ইংরেজি প্রভাষককে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করেছে কলেজ কর্তৃপক্ষ।
এতে সহযোগিতাকারী ওই কলেজের পিয়নকেও সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

শিক্ষক ও ছাত্রী প্রেম করে চুপিসারে ওই পিয়নের বাড়িতে গিয়ে বিয়ে করার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। এরপর ছাত্রী অভিভাবকরা বিষয়টি টের পেয়ে তাকে সেখান থেকে উদ্ধার করে বাড়ি নিয়ে যায়। এ সংক্রান্ত একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছরিয়ে পরেছে। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলা শহরে অবস্থিত ফুলবাড়ী ডিগ্রি কলেজের ইংরেজি প্রভাষক একই কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থীকে প্রাইভেট পড়াতেন।

এ সুযোগে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। প্রেমের সম্পর্কের একপর্যায়ে বিয়ে করতে গত ১৮ এপ্রিল কলেজের পিয়ন জিয়ার সহযোগিতায় তার বাড়িতে ওই ছাত্রীকে নিয়ে যান প্রভাষক। এরপর কাজী ডেকে বিয়ে পড়ার মুহূর্তে ছাত্রীর অবিভাবক ও লোকজন জানতে পেরে তাকে উদ্ধার করেন।

পরে বিষয়টি জানাজানি হলে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়।নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক ছাত্রীর অভিভাবক জানান, ঘটনার দুই দিন পর ওই প্রভাষক ও পিয়নের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য কলেজ সভাপতি ও অধ্যক্ষ বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন তারা। তারই পরিপ্রেক্ষিতে কলেজ পরিচালনা পর্ষদের সভায় দুজনকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন অভিভাবক বলেন, ‘ফুলবাড়ী কলেজে এ ধরনের ঘটনা আমরা আশা করিনি। আমাদের মেয়েরাও এই কলেজে লেখাপড়া করে। ঘটনার পর আমাদের মেয়েদের নিয়েও আমরা খুবই চিন্তিত হয়ে পড়েছি। এ বিষয়ে জানতে চাইলে অভিযুক্ত ইংরেজি প্রভাষক বলেন, ‘আমাকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে। আমার কাছে জবাব চেয়েছে আমি বিষয়টির জবাব দেব।

ফুলবাড়ী ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ আমিনুল ইসলাম রিজু বলেন, অভিভাবকের অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযুক্ত ওই দুজনকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে তদন্ত চলমান। তদন্ত রিপোর্ট অনুযায়ী পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

কলেজের গভর্নিং বডির সভাপতি আজিজার রহমান মাস্টার বলেন, ‘জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে কথা বলে আমরা তাদেরকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করেছি, আগামী ১০ দিনের মধ্যে সন্তোষজনক জবাব না পেলে তাদের স্থায়ী বরখাস্ত করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *