কুড়িগ্রামে চলন্ত মোটরসাইকেলে বিষাক্ত সাপ অল্পের জন্য প্রাণে রক্ষা

কুড়িগ্রামে চলন্ত মোটরসাইকেলে বিষাক্ত সাপ অল্পের জন্য প্রাণে রক্ষা

মোবাশ্বের নেছারী কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি :

কুড়িগ্রামে এক এনজিও কর্মী চলন্ত মোটরসাইকেলে বিষাক্ত সাপের কবলে পরেও তাৎক্ষণিক বাইকটি থামিয়ে প্রাণে রক্ষা পেয়েছেন।

চাঞ্চল্যকর এ ঘটনাটি ঘটেছে, রবিবার (২৬ মার্চ) দুপুরে কুড়িগ্রাম জেলা শহরের কলেজ মোড় এলাকায়।

জানা গেছে, নারী সহকর্মী শাখা ম্যানেজার মারুফা আক্তারসহ বিশেষ কাজে সদর উপজেলার কাঁঠাল বাড়ী ইউনিয়নের অফিস থেকে মোটরসাইকেল নিয়ে শহরের দিকে আসছিলেন আরডিআরএস কর্মী লুৎফর রহমান। শহরের কলেজ মোড় এলাকায় পৌঁছার মুহূর্তে হঠাৎ করে তার চোখে পড়ে মোটরসাইকেলের সামনের মাইল মিটারের উপর একটি বিষাক্ত সাপ ফণাতুলে আছে।

এ অবস্থায় তিনি ভীত সন্ত্রস্ত হয়ে পরেন এবং দ্রুত মোটরসাইকেলটি দাঁড় করান। এসময় বিষাক্ত সাপটি ধীরে ধীরে আবার মোটরসাইকেলের ভিতরে ঢুকে যায়। বিষয়টি জানাজানি হলে সেখানে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। তাৎক্ষণিক ভাবে ঐ এনজিও কর্মী মোটরসাইকেলটি কলেজ মোড়ের একটি দোকানের সামনে নিলে সেখানে উৎসুক জনতার ভিড় জমায়।

এরপর মোটরসাইকেল মেকানিকের প্রায় দেড় ঘন্টার চেষ্টায় বিষাক্ত সাপটি মোটরসাইকেলের ভেতর থেকে বের করে আনা হয়। সাপটি বের হওয়া মাত্রই উৎসুক জনতা তাকে লাঠির আঘাতে মেরে ফেলে।

ভুক্তভোগী আরডিআরএস কর্মী লুৎফর রহমান জানান, হঠাৎ শহরের পৌরবাজার এলাকা অতিক্রম করে কলেজ মোড়ে পৌঁছার পূর্ব মুহূর্তে দেখি মোটরসাইকেলের মাইল মিটারের উপর একটি বিষাক্ত সাপ ফণা তুলে আছে। আমি কৌশলে গাড়িটি দাঁড় করিয়ে মোবাইল ফোন দিয়ে ছবি তুলি। পরে সাপটি গাড়ির ভিতর ঢুকে যায়।

ধারণা করছি আমাদের অফিসের আশেপাশের জঙ্গল থেকে বিষাক্ত সাপটি আগেই হয়তো মোটরসাইকেলে উঠেছিল। বিষাক্ত সাপ থেকে রক্ষা পাওয়ায় মহান আল্লাহর দরবারে শুকরিয়া আদায় করছি।

কুড়িগ্রাম বন বিভাগের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মমিনুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি শুনেছি। সাপটি হয়তো নিরাপদ স্থান মনে করে গাড়ির ভিতরে ঢুকেছিল।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *