কবি সৈয়দ শামসুল হকের ৮৭তম জন্মবার্ষিকী 

আজ সব্যসাচী কবি সৈয়দ শামসুল হকের ৮৭তম জন্মবার্ষিকী

মোবাশ্বের নেছারী উলিপুর(কুুড়িগ্রাম)

 

 

আজ ২৭ ডিসেম্বর মঙ্গলবার সব্যসাচী কবি সৈয়দ শামসুল হকের জন্মবার্ষিকী । ‘মানুষ এমন তয় একবার পাইবার পর/নিতান্ত মাটির মনে হয় তার সোনার মোহর’- পরানের গহীন ভিতরের এই অনবদ্য কথামালার মতো অজস্র পঙ্‌ক্তির রচয়িতা  সব্যসাচী কবি শামসুল হক।

কবি সৈয়দ শামসুল হকের ৮৭তম জন্মবার্ষিকী। কবিতা, গান, নাটক, গল্প, উপন্যাস, চিত্রনাট্য রচনাসহ সাহিত্য-শিল্পের নানা ক্ষেত্রে তিনি নিজের ছাপ রেখেছেন। যে কারণে তাঁকে ‘সব্যসাচী’ লেখকের উপাধি দেওয়া হয়। নিজের ৮০তম জন্মবার্ষিকীর আয়োজনে তিনি ‘মহাত্মা লালন’-এর দিকে চেয়ে আছেন বলে জানিয়েছিলেন।

বাংলা ভাষার এই অনন্য শিল্পী নিজস্ব প্রতিভায় চির অমরের সরণিতে নিজেকে দাঁড় করিয়েছেন। স্বকীয় ভাষাশৈলী, চিন্তার মৌলিকত্ব ও প্রকাশের বহুমাত্রিকতায় চিরস্মরণীয় সৈয়দ শামসুল হক উত্তর প্রজন্মের কাছে নিত্যস্মরণীয়।

সৈয়দ শামসুল হকের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলা একাডেমির কবি শামসুর রাহমান সেমিনার কক্ষে আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে বাংলা একাডেমি। অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক কবি মুহম্মদ নূরুল হুদা ও কথাসাহিত্যিক আনোয়ারা সৈয়দ হক। সভাপতিত্ব করবেন বাংলা একাডেমির সভাপতি কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেন। এ সময় সৃজনশীল প্রকাশনী আগামী প্রকাশিত সৈয়দ হকের মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক পাঁচটি উপন্যাসের সংকলন ‘মুক্তিযুদ্ধের শ্রেষ্ঠ উপন্যাস সমগ্র’র মোড়ক উন্মোচন করা হবে। এ ছাড়া ঐতিহ্য প্রকাশনী সৈয়দ হক অনূদিত পাঁচটি উপন্যাস প্রকাশ করবে।

সৈয়দ শামসুল হকের জন্মস্থান কুড়িগ্রাম। কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসন, কুড়িগ্রাম সরকারি কলেজ, কুড়িগ্রাম প্রেস ক্লাব ও অন্যান্য সংগঠন থেকে নানা কর্মসূচি উদ্যোগে নেওয়া হয়েছে। কবির সমাধিস্থল ঘিরে কুড়িগ্রাম সরকারি কলেজ প্রাঙ্গণে আয়োজন করা হয়েছে দিনব্যাপী ‘সৈয়দ হক মেলা ২০২২’। স্থানীয় স্কুল শিক্ষক তৌহিদুল ইসলামের উদ্যোগে ২০২১ সাল থেকে প্রবর্তিত সৈয়দ হক শিশুসাহিত্য পুরস্কার-২০২২ এর জন্য শ মা শামসুলকে মনোনীত করা হয়েছে। আগামীকাল কুড়িগ্রামে এ পুরস্কার দেওয়া হবে।

২০১৬ সালের ১৫ এপ্রিল ফুসফুসের সমস্যা দেখা দিলে কবি সৈয়দ শামসুল হককে লন্ডন নিয়ে যাওয়া হয়। লন্ডনের রয়্যাল মার্সডেন হাসপাতালে পরীক্ষায় তাঁর ফুসফুসে ক্যান্সার ধরা পড়ে। ২৭ সেপ্টেম্বর ঢাকার একটি বেসরকারি হাসপাতালে তাঁর জীবনাবসান হয়। পরদিন কবির ইচ্ছামাফিক তাঁকে সমাধিস্থ করা হয় কুড়িগ্রামে সরকারি কলেজের পাশে। সৈয়দ শামসুল হক ১৯৩৫ সালের ২৭ ডিসেম্বর জন্মগ্রহণ করেন।#

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *