ইরানে সাইবার হামলা

ইরানে সাইবার হামলা, যুক্তরাষ্ট্র-ইসরায়েলকে সন্দেহ

সাইবার হামলা শুধু ব্যাংক কিংবা গোপনীয় নথির ক্ষেত্রে হচ্ছে, এমন নয়। সম্প্রতি ইরানের পেট্রোল স্টেশনে সাইবার হামলা হয়েছে। আর এই হামলার পেছনে যুক্তরাষ্ট্র-ইসরায়েলকে সন্দেহ করছে ইরানের একজন জেনারেল।

সাইবার হামলার কারণে ইরানের পেট্রোল স্টেশনগুলো একদিন বন্ধ ছিল। রোববার (৩১ অক্টোবর) আরব নিউজের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

ইরানের বিপ্লবী গার্ডের জেনারেল গোলামরেজা জালালি বলেন, ইরানে রেল ও শহীদ রাজাইবন্দরে সাইবার হামলা হয়েছিল। ওই দুটি সাইবার হামলার সঙ্গে পেট্রোল স্টেশনে হামলার মিল আছে।

যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরায়েলকে ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, এ ধরনের অপরাধীরা আমাদের শত্রু। সাইবার হামলা বিশ্লেষণ করে এ হামলার সঙ্গে মিল খুঁজে পাওয়ার কথা জানান।

ইরানের পরিবহন মন্ত্রণালয় জানায়, গত জুলাই চালানো সাইবার হামলায় তাদের রেল ব্যবস্থার কম্পিউটার সিস্টেম ও ওয়েবসাইটের ক্ষতি হয়। এছাড়া গত বছরের মে মাসে ওয়াশিংটন পোস্ট এক প্রতিবেদনে জানায়, হরমুজ প্রণালিতে ইরানের শাহিদ রাজাইবন্দরে সাইবার হামলা চালায় ইসরায়েল। বৈশ্বিক তেলের চালানের জন্য এটি একটি কৌশলগত পথ।

এরই ধারাবাহিকতায় গত ২৬ অক্টোবর জ্বালানি পেট্রোল স্টেশনকে লক্ষ্য করে সাইবার হামলা চালানো হয়। এতে স্টেশনগুলোতে গাড়ির দীর্ঘ লাইন দেখা যায়। পরে ইরান কর্তৃপক্ষ অনলাইনের পরিবর্তে অফ-লাইনে তেল বিক্রি করে পরিস্থিতি সামাল দেয়।

প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি বলেন, অপরাধীরা ইরানের জনগণকে নেতাদের বিরুদ্ধে উসকানি দিচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *